মঙ্গলবার ১৬ আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১ ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

নিউইয়র্কে বিয়েসহ নানা অনুষ্ঠানের ধুম, কমিউনিটি সেন্টার সংকট তীব্র

এনা অনলাইন :   মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২ 12727
নিউইয়র্কে বিয়েসহ নানা অনুষ্ঠানের ধুম, কমিউনিটি সেন্টার সংকট তীব্র

যুক্তরাষ্ট্রে সামার শুরু হয়ে গেছে। তাই বিয়ে, জন্মদিন, সুইট সিক্সটিন, গ্র্যাজুয়েশন পার্টি, অভিষেক, সংবর্ধনাসহ বিভিন্ন ধরনের অনুষ্ঠানের ধুম লেগেছে। নিউইয়র্কের বেশির ভাগ হল বুকিং হয়ে গেছে। বলতে গেলে জুন-জুলাই মাসে ছুটির দিনগুলোতে কোনো হল খালি পাওয়া যাচ্ছে না। নতুন করে যারা অনুষ্ঠান করতে চাচ্ছেন, তারা পড়েছেন বিপাকে। কারণ হল সংকট তীব্র আকার ধারণ করেছে।

এদিকে অনুষ্ঠানপ্রেমীরা হল সংকটে থাকলেও হল মালিকরা রয়েছেন ফুরফুরে মেজাজে। কারণ তারা ভালো ব্যবসা করছেন। জুন, জুলাই ও আগস্ট মাসের শুক্র, শনি ও রোববার প্রায় প্রতিদিনই দুই বেলা করে হলগুলো বুকড হয়ে গেছে। বিশেষ করে, জুন-জুলাই মাসে নতুন করে কোনো অনুষ্ঠান করার মতো হল খালি নেই। আগস্টের জন্য কিছু কিছু হল এখনো খালি আছে। তবে ছুটির দিনগুলোর হল বুকড হয়ে গেলেও উইক ডেতে খালি আছে। কিন্তু উইক ডেতে অনেকেই অনুষ্ঠান করতে আগ্রহী নন। কারণ, অফিস, ব্যবসাপ্রতষ্ঠানসহ সবকিছু খোলা থাকার কারণে দাওয়াত পেয়েও বেশির ভাগ মানুষ অনুষ্ঠানে আসতে পারেন না। হল খালি না থাকায় এখন অনেকেই অফিস খোলার দিনেই অনুষ্ঠান করতে বাধ্য হচ্ছেন। আবার অনেকে অনুষ্ঠানের তারিখ পরিবর্তন করছেন। জুন-জুলাই মাসের পরিবর্তে আগস্টে কিংবা এরও পরে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

হল, পার্টি সেন্টার ও রেস্টুরেন্টের মালিক এবং দায়িত্বশীলদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, ইতিমধ্যে ওয়ার্ল্ড ফেয়ার মেরিনা, কুইন্স প্যালেস পার্টি সেন্টার, জয়া হল, গুলশান ট্যারেস, তাজমহল পার্টি সেন্টার এবং খলিল চাইনিজ, ধানসিঁড়ি চাইনিজ রেস্টুরেন্ট, নবান্ন পার্টি সেন্টারসহ বিভিন্ন পার্টি হলে অনুষ্ঠানের জন্য বুকিং চলছে।

ওয়ার্ল্ড ফেয়ার মেরিনার তালুকদার শামীম সবুজ বলেন, আমাদের এখানে হল জুন, জুলাই ও আগস্ট মাসের শুক্র, শনি ও রোববার বুকড হয়ে গেছে। কেউ যদি অনুষ্ঠানের তারিখ পরিবর্তন করেন কিংবা বাতিল করেন, সে ক্ষেত্রে হল খালি পাওয়া যাচ্ছে। তবে খোলার দিনগুলোতে হল খালি আছে। তিনি বলেন, এখন বিয়ের অনুষ্ঠান বেশি। এ ছাড়া সুইটস সিক্সটিন, জন্মদিনের অনুষ্ঠান, গেট টুগেদার, আকদ অনুষ্ঠান, বউভাতসহ বিভিন্ন ধরনের অনুষ্ঠান হচ্ছে। বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের অভিষেক অনুষ্ঠানও হচ্ছে। অনুষ্ঠানের ধরন এবং খাবারের তালিকা বিবেচনা করে মূল্য ধরা হয়। আমাদের এখানে সুবিধা হলো দুপুর এবং রাতে দুই বেলা আমরা পার্টি করার সুবিধা দিয়ে থাকি।

জয়া হলের ম্যানেজার সানোয়ার চৌধুরী বলেন, আমরা হলের বুকিং নিচ্ছি। তবে এই সামারের বেশির ভাগ ছুটির দিন এবং শুক্রবারগুলো খালি নেই। কিছু আছে আগস্টের দিকে। অন্যান্য দিনেও আছে। আমাদের এখানে সব ধরনের অনুষ্ঠান করার সুযোগ আছে। ৬৫০-৭০০ অতিথির বসার ব্যবস্থা আছে। রয়েছে যার যার পছন্দ অনুযায়ী খাবারের ব্যবস্থা। মেন্যু দেখে আয়োজকেরা খাবারের অর্ডার দিতে পারেন। তিনি বলেন, কেবল বাংলাদেশিদের অনুষ্ঠানই নয়, অন্যান্য কমিউনিটির মানুষেরাও এখানে অনুষ্ঠান করছেন। এখানে শনিবারের জন্য হল ভাড়া ২ হাজার ৪৯৫ ডলার। সোম থেকে বৃহস্পতিবার হলে ১ হাজার ১৯৫ ডলার। আর শুক্রবার ১ হাজার ৯৯৫ ডলার। এ ছাড়া খাবারে জনপ্রতি ৩০-৩৫ ডলার নেওয়া হয়।

তাজমহল পার্টি সেন্টরের কর্ণধার পঙ্কজ বলেন, আমাদের হলের বুকিং চলছে। জুন-জুলাই মাসের বেশির ভাগ দিন অনুষ্ঠান রয়েছে। সেখানে ছুটির দিনে কোনো বুকিং নিতে পারছি না। তবে আগস্টের অনুষ্ঠানে বুকিং চলছে। আমরা অত্যন্ত সুযোগ-সুবিধা দিচ্ছি। আশা করছি, কাস্টমাররা এতে সন্তুষ্ট।

খলিল বিরিয়ানির প্রধান শেফ খলিলুর রহমান বলেন, ২০২০ ও ২০২১ সালে মানুষের মধ্যে যে শঙ্কা ছিল, এখন সেটি কেটে যাচ্ছে। ফলে ওই সময়ে অনুষ্ঠান তেমন হয়নি। এখন আবার অনেক অনুষ্ঠান হচ্ছে। আমাদের চাইনিজ রেস্টুরেন্টে ১০০ জনের বেশি বসার ব্যবস্থা রয়েছে। খলিল চাইনিজ, খলিল পিৎজা ও খলিল বিরিয়ানি হাউসে ছোট ছোট পার্টির রিজার্ভেশন রয়েছে। চাইনিজে গেট টুগেদার, বার্থ ডে পার্টিসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠান হচ্ছে। পার্টি করা ছাড়াও পিকনিক ও ঘরোয়া অনুষ্ঠানের জন্য আমরা ক্যাটারিং করছি। উইকেন্ডে ব্যস্ত থাকি। আমাদের এখানে ২৫-৩০ ডলারের মধ্যে জনপ্রতি বাজেট ধরলে হয়ে যায়। ছোটখাটো ও কম অতিথির বিয়ের অনুষ্ঠান হলে সেটিও করা সম্ভব। এবার ব্যবসা ভালো যাচ্ছে।

হল মালিক ও দায়িত্বশীলরা বলেছেন, করোনার পর এই বছর আশা করা যাচ্ছে ব্যবসা ভালো হবে। কিন্তু গত দুই বছরের ক্ষতি কাটিয়ে ওঠা সম্ভব হবে না। কারণ, দুই বছরের ব্যবসা তো আর এক বছরেই হবে না। এদিকে দ্রব্যমূল্য বাড়ায় খাবারের খরচও বাড়ছে। তাই লাভও তুলনামূলক কম হচ্ছে। তবু তারা আশাবাদী, আগের ক্ষতি কিছুটা পুষিয়ে নেওয়া যাবে। এদিকে হল সংকটের কারণে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের দিন পেছানো হচ্ছে। কারণ নামীদামি এবং সব সময় যেসব হোটেল-রেস্টুরেন্টে বাংলাদেশি কমিউনিটির অনুষ্ঠান হয়ে থাকে, বর্তমানে সেগুলো খালি নেই। জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের নতুন কমিটির দায়িত্ব হস্তান্তর এবং অভিষেক অনুষ্ঠান ঈদের আগেই করার কথা রয়েছে। কিন্তু এই অনুষ্ঠান করার জন্য হল পাচ্ছেন না। এ ব্যাপারে সংগঠনের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট বদরুল হোসেন খান বলেন, আমরা বড় পরিসরে অনুষ্ঠানটি করতে চাইছি। এ জন্য আমরা ম্যারিয়ট হলে অনুষ্ঠান করার চিন্তা করছি। কিন্তু সেখানে হল পাচ্ছি না। হল না পেলে ঈদের আগে অভিষেক নাও হতে পারে, এটি হতে পারে ঈদের পরে। তবে আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি একটি ভালো হল পাওয়ার।

Facebook Comments Box

Comments

comments

Posted ২:০৭ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২

America News Agency (ANA) |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আর্কাইভ

President/Editor-in-chief :

Sayeed-Ur-Rabb

 

Corporate Headquarter :

 44-70 21st.# 3O1, LIC. New York-11101. USA, Phone : +6463215067.

Dhaka Office :

70/B, Green Road, 1st Floor, Panthapath, Dhaka-1205, Phone : + 88-02-9665090.

E-mail : americanewsagency@gmail.com

Copyright © 2019-2022Inc. America News Agency (ANA), All rights reserved.ESTD-1997